২২ নভেম্বর, ২০১৮, ঢাকা, বাংলাদেশ - সম্প্রতি বাংলাদেশে ব্যবসায়রত ৫টি জাপানিজ কোম্পানী দেশের দুস্থ ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের জন্য “বি দ্যা লাইট” শীর্ষক এক প্রজেক্টের মধ্য দিয়ে একত্রে কাজ করার ঘোষণা প্রদান করেছে।
আজিনোমোতো, গ্রামীণ ইউনিক্লো, হোন্ডা, রোহ্তো এবং ওয়াইকেকে বাংলাদেশে ব্যবসায়রত ৫টি জাপানিজ কোম্পানী। প্রতিষ্ঠানগুলোর বিনিয়োগ ও ব্যবসায় সম্প্রসারণ নীতি দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। এই অবদানের পাশাপাশি সামাজিক উন্নয়ন ও মানবতার সেবায় সম্প্রতি একত্রে কাজ করার ঘোষনা দেয় প্রতিষ্ঠানগুলো। বিশেষ এক আয়োজনে স্মারক সাক্ষরের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানগুলো একথা ব্যক্ত করে। “বি দ্যা লাইট” প্রজেক্টের আওতায় অবহেলিত ও দুস্ত মানুষের সেবায় অনুদান, শীত ও বন্যার মত প্রাকৃতিক দুর্যোগে সহায়তা এবং সামাজিক উন্নয়ন ও মানব সেবায় বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নেয়া হবে বলে জানা যায়। বাংলাদেশের অসহায় ও দুস্থ মানুষের মধ্যে আশার আলো ছড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে আলোকবর্তিতা হিসেবে আবর্তিত হবার অভিপ্রায়ে এই প্রতিষ্ঠানগুলো একত্রে কাজ করবার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।
এই উদ্যোগের প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে আগামী ডিসেম্বর মাসে দেশের উত্তরাঞ্চলের শীতার্ত মানুষের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরণ করা হবে।
এক বিশেষ বৈঠকে প্রতিষ্ঠানগুলোর দায়িত্বপ্রাপ্ত উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দের উপস্থিতিতে আয়োজিত হয় স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানটি।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত গ্রামীণ ইউনিক্লোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হক বলেন, “এই উদ্যোগের মাধ্যমে আমরা অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি সামাজিক উন্নয়নেও এখন থেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারব।”
“আমরা আশা করছি আমাদের এই প্রয়াস কিছু দুস্থ মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে সহায়তা করবে এবং তাদের জীবনে আশার আলো নিয়ে আসবে”, বলেন হোন্ডা বাংলাদেশ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউইচিরো ইশি।
ওয়াইকেকে এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব তাকাশি মিয়াতা জানান, “আমাদের প্রতিষ্ঠানের মতাদর্শ হচ্ছে “সাইকেল অব গুডনেস”। আর এই মতাদর্শের উপর ভিত্তি করেই আমরা আশা করি দুর্যোগ কবলিত মানুষের সেবায় আমাদের এই সমস্বিত পদক্ষেপ কিছুটা হলেও ভূমিকা রাখবে।”
আজিনোমোতো এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইয়াসুশি সাওয়াদা বলেন, “শুধু ব্যবসায় নয় বরং সামাজিক উন্নয়ন এর সাথে ব্যবসায় আমাদের মূল লক্ষ্য।”
“আমরা অর্জিত মুনাফা থেকে ফান্ড গঠনের মাধ্যমে কাজ করব সুতরাং আমাদের সম্মানিত ক্রেতাদের সাথে নিয়েই সমাজের উন্নয়নে আমাদের এই সমন্বিত প্রয়াস” জানান রোহ্তো মেনথোল্যাটাম এর সহযোগী মহা-ব্যবস্থাপক জনাব শফিকুল ইসলাম।